nagorikkanthanagorikkantha

মঙ্গলবার ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও নারী নেতাদের নিয়ে ‘আগামী নির্বাচনে নারী নেতৃত্ব বৃদ্ধি’ শীর্ষক একটি গোলটেবিল বৈঠকের আয়োজন করে। এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে মূলত: বাংলাদেশের নির্বাচন প্রক্রিয়ায় নারী নেতৃত্ব বৃদ্ধি ও গতিশীল করার সম্ভাবনাকে তুলে ধরা হয়। এই গোল টেবিল বৈঠকটি রাজধানীর গুলশানে অবস্থিত লেকশোর হোটেলে অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে সারাদেশ থেকে আসা বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ও বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের প্রায় ১৫০ নারী নেত্রী দলের অভ্যন্তরে এবং আগামি নির্বাচনে নারী নেতৃত্ব বৃদ্ধিতে তাঁদের যৌথ সুপারিশমালাসমূহ দলগুলোর কেন্দ্রীয় কমিটির নীতি নির্ধারকবৃন্দ এবং প্রধান নির্বাচন কমিশনারের নিকট তুলে ধরেন।

নারী নেতাবৃন্দের মূল সুপারিশমালাসমূহ:
গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ ২০০৯ (সংশোধিত) ধারা ৯০বি বাস্তবায়নে নির্বাচন কমিশন এবং রাজনৈতিক দল কর্তৃক মনিটরিং সেল গঠন করা যা রাজনৈতিক দলের মূলধারার কমিটিতে নারীর অংশগ্রহণ বৃদ্ধির হার নিয়মিতভাবে মনিটর করবে;
নির্বাচনে সাধারণ আসনে ৩৩% নারী মনোনয়ন দেয়ার লক্ষ্য নিয়ে রাজনৈতিক দলগুলোর নির্বাচন সংক্রান্ত মনোনয়ন কমিটিতে ৩৩% নারী প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করা;
নির্বাচনে সন্ত্রাস, কালো টাকা এবং পেশীশক্তির অপব্যবহার রোধ করতে নির্বাচন কমিশন কর্তৃক তদারকির ব্যবস্থা করা। প্রয়োজনে এলাকাভিত্তিক পর্যবেক্ষণ ক্যাম্প স্থাপন করে প্রয়োজনীয় আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ করা;
নারীদের রাজনৈতিক দক্ষতা বৃদ্ধির জন্যে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা;
বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে সাধারণ আসনে নারীর অংশগ্রহণ বৃদ্ধি নিশ্চিত করতে রাজনৈতিক দলগুলোকে বিভিন্ন প্রণোদনা দেয়ার ব্যবস্থা করে উদ্বুদ্ধ করা;

এই গোলটেবিল বৈঠক অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন:

বিশেষ অতিথি: মার্শা স্টিফেনস্ ব্লুম বার্নিক্যাট, বাংলাদেশে নিয়োজিত মার্কিন রাষ্ট্রদূত।
প্যানেল বক্তা:
জনাব কে এম নুরুল হুদা, প্রধান নির্বাচন কমিশনার, নির্বাচন কমিশন, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার।
জনাব এইচ টি ইমাম, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা, উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য, কার্যনির্বাহী সংসদ, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ।
জনাব ড. হাসান মাহমুদ, মাননীয় সংসদ সদস্য, প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটি, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ।
জনাব আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, সদস্য, জাতীয় স্থায়ী কমিটি, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল।
জনাব ড. আবদুল মঈন খান, সদস্য, জাতীয় স্থায়ী কমিটি, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল।

ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের চিফ অব পার্টি কেটি ক্রোক বলেন, ‘রাজনৈতিক দলগুলোতে নেতৃত্ব পর্যায়ে আরো বেশি সংখ্যক নারীর অংশগ্রহণের বিষয়টি আমাকে অনুপ্রেরণা যোগায়। আমি এ বাপারে আত্মবিশ্বাসী যে, সাধারণ নির্বাচনী আসনে নারী নেতাদের মনোনয়ন বৃদ্ধি এবং দলের মূল কমিটিগুলোতে উচ্চ পর্যায়ে নারী নেতৃত্ব বৃদ্ধির এই ইতিবাচক প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকবে’ ।

ইউএসএআইডি ও ইউকেএইড এর যৌথ অর্থায়নে ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের `Strengthening Political Landscape in Bangladesh’ প্রকল্পের অধীনে অনুষ্ঠানটি আয়োজন করা হয়। ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনাল ‘নারীর জয়ে সবার জয়’ ক্যাম্পেইনের আওতায় এডভোকেসি, প্রশিক্ষণ ও নেটওয়ার্কিং এর আওতায় সারাদেশের প্রায় ২০,০০০ নারী নেতাদের একটি বহুদলীয় নেটওয়ার্ক আছে। এই ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনাল সারাদেশে ৪৩০টি জাতীয় এবং তৃণমূল কমিটিতে ৫৪৪৯ জন নারীকে অন্তর্ভুক্ত হতে সহায়তা করেছে।

২৮ নভেম্বর, ২০১৭ ১৭:৪৭ পি.এম