nagorikkanthanagorikkantha

মোবাইলে প্রেম, অতঃপর দেখা করতে গিয়ে পাকড়াও। এটা কোনো সিনেমার কাহিনী না হলেও সিনেমায় অভিনয়ের সুযোগ করে দেওয়া কথা বলে এক প্রতারককে আটক করছে পুলিশ। পশ্চিমবঙ্গের বনগাঁ থানা এলাকায় এমনি এক ঘটনা ঘটেছে।

অভিনয় শিখিয়ে সিনেমা-সিরিয়ালে সুযোগ পাইয়ে দেওয়ার নাম করে টাকা নেওয়ার অভিযোগে মঙ্গলবার সুকুমার রায় ওরফে আকাশ নামে এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। এর আগে পুলিশের এক নারী সদস্য প্রেমিকার সেজে তার সঙ্গে দীর্ঘদিন প্রেমের অভিনয় করে।

আনন্দবাজার পত্রিকার এক সংবাদে জানানো হয়, গত মঙ্গলবার বিকেলের বনগাঁ-শিয়ালদহ শাখার বিড়া স্টেশন-সংলগ্ন এলাকায় দেখা করেন তারা দু’জন। প্রেমিকাকে দেখে মুগ্ধ প্রেমিক আকাশ। দেরি না করে বিয়ের প্রস্তাবও দেন তিনি। সিঁদুর কিনে আনেন। তবে তখনও আকাশ জানেন না একটু পর কী ঘটতে যাচ্ছে তার জীবনে।

বিড়া চৌমাথায় একটি হোটেলে মাত্র ১৫ টাকার চাউমিন কাঁটা চামচ দিয়ে খাচ্ছিলেন প্রেমিকা আর আকাশ তা মুগ্ধ হয়ে দেখছিলেন। এমন সময় হঠাৎই কোথা থেকে উড়ে এসে জুড়ে বসে আরও এক মহিলা ও দুই যুবক। আকাশের জামার কলার ধরে টানতে টানতে গাড়িতে তোলেন। প্রেমিকাও ওঠেন একই গাড়িতে।

তখনও বুঝে উঠতে পারছে না আকাশ, কী ঘটছে? তার ভুল ভাঙে ধমকে। প্রেমিকার গলা মোটায় চুপ করে বসতে বলায় আকাশ বুঝতে পারে ফাঁদের শিকার তিনি। এরপর তাকে বনগাঁ থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।

পুলিশ জানায়, কয়েক দিন আগে বনগাঁ কেবল টিভিতে একটি বিজ্ঞাপনে অভিনয় শিক্ষা, সিরিয়াল-সিনেমায় সুযোগের কথা বলা হয়। যোগাযোগের জন্য একটি ফোন নম্বরও দেওয়া হয়। খবর ছিল, সিনেমায় সুযোগ দেওয়ার নামে প্রতারণা করছে একটি চক্র। আইসির নির্দেশে এক মহিলা কনস্টেবল বিজ্ঞাপনে দেওয়া নম্বরে ফোন করে অভিনয় শেখার ইচ্ছা প্রকাশ করেন।

এরপর টাকা-পয়সা নিয়ে কথা চলে। অন্তরঙ্গতা বাড়ে। নতুন সঙ্গিনী পেয়ে আকাশও দিশাহারা। দেখা করার ইচ্ছে প্রকাশ করলে শিকার ফাঁদে পা দিয়েছে বুঝতে পেরে ঘুঁটিও সাজিয়ে ফেলে পুলিশ। ধরা পড়ে আকাশ।

আকাশের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, ৬ মাসের কোর্সের জন্য ৫ হাজার টাকা করে নিত সে, এরপর উধাও। তবে কোথাও সুযোগ করিয়ে দেওয়ার মতো যোগ্যতা তার নেই। মিথ্যে প্রতিশ্রুতি দিয়ে আর্থিক প্রতারণা তো বটেই, মেয়েদের দেহ ব্যবসার কাজেও নামাত সে। পুলিশ এ চক্রের বাকিদের খোঁজ করছে।

৩০ নভেম্বর, ২০১৭ ১২:১৩ পি.এম