nagorikkantha

বায়ুদূষণের কারণে ফুসফুসের ক্ষতি বা শ্বাসকষ্টের বিষয়টি সবারই জানা। কিন্তু জাতিসংঘের শিশু বিষয়ক সংস্থা ইউনিসেফ এবার সতর্ক করে দিয়ে বলেছে, বায়ুদূষণের কারণে শিশুদের মস্তিষ্ক পুরোপুরি স্থায়ীভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।

ইউনিসেফের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বায়ুদূষণে শিশুদের মস্তিষ্কের বিকাশে ঝুঁকি সৃষ্টি হয়। দূষিত বায়ুতে শ্বাস নেয়া হলে তা মস্তিষ্কের টিস্যুকে ক্ষতিগ্রস্ত করে এবং জ্ঞানের বিকাশকে বাধাগ্রস্ত করতে পারে। যার বিরূপ প্রভাব বয়ে বেড়াতে হয় জীবনভর।

মস্তিষ্কের ক্ষতির কারণে স্কুলে পড়ুয়া শিশুদের বুদ্ধিমত্তা এবং স্মরণশক্তির সমস্যায় ভোগা ছাড়াও পরীক্ষায় ভালভাবে উত্তীর্ণ হতে না পারা কিংবা অন্যান্য স্নায়বিক আচরণগত সমস্যাও দেখা দিতে পারে।

বিশ্বে শহুরে জীবনযাত্রা যতই বাড়তে থাকবে ততই দূষণ বাড়বে। এ থেকে কোনও সুরক্ষা ব্যবস্থা না নেওয়া হলে ‍বা দূষণ কমানোর পদক্ষেপ না নিলে সামনের দিনগুলোতে আরও অনেক শিশু মস্তিষ্ক ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার ঝুঁকিতে পড়বে বলে প্রতিবেদনে সতর্ক করেছে ইউনিসেফ।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, দক্ষিণ এশিয়ার শিশুরাই বায়ুদূষণের ক্ষতির শিকার হচ্ছে সবচেয়ে বেশি। এ অঞ্চলে বায়ুদূষণ আন্তর্জাতিক মাত্রার চেয়ে ছয় গুণ বেশি।

দক্ষিণ এশিয়ায় ১ কোটি ২০ লাখ শিশু বাস করে। আর পূর্ব এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় এলাকায় ৪০ লাখ শিশু বায়ুদূষণে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার ঝুঁকিতে আছে।

০৭ জানুয়ারী, ২০১৮ ১১:১৪ এ.ম