nagorikkantha

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সুষ্ঠু হওয়ার আলামত দেখতে পাচ্ছি না।

তিনি বলেন, সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী বিএনপি ও দলের শীর্ষস্থানীয় নেতাদের নিয়ে যে আপত্তিকর মন্তব্য করেছেন তা সম্পূর্ণ রাজনৈতিক শিষ্টাচার বহির্ভুত। আমরা তার এমন মন্তব্যের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। পাশাপাশি আগামী দিনে এরকম আপত্তিকর মন্তব্য করা থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানাচ্ছি।

সোমবার দুপুরে নয়াপল্টন দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক যৌথসভা শেষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ভোটারবিহীন প্রধানমন্ত্রীর ন্যূনতম মূল্যবোধ থাকলে পদত্যাগ করে নতুন করে নির্বাচনের উদ্যোগ নিতেন।

এক প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, নির্বাচনী বছরে অস্থিতিশীলতার আশঙ্কা নেই। সরকার যদি পরিবেশ ঘোলাটে করে জনগণ যাতে ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে না পারে সেই চেষ্টা চালায় কেবলমাত্র তখনই অস্থিতিশীলতা দেখা দেবে।

সংবাদ সম্মেলনে জাতীয় সংসদের শীতকালীন অধিবেশনের শুরুতে উন্নয়ন এবং গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত রাখতে সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে রাষ্ট্রপতির দেয়া বক্তব্যের সমালোচনা করেন মির্জা ফখরুল।

তিনি বলেন, রাষ্ট্রপতি হচ্ছেন সংবিধানের অভিভাবক। আমরা সবসময় সংবিধান এবং রাষ্ট্রপতিকে সম্মান করি। তবে এখন সেই সংবিধান নেই। ইসি গঠনের আগে এবং পরে আমরা দলীয় মতামত রাষ্ট্রপতির কাছে জানিয়েছিলাম। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে তিনি একটি রাজনৈতিক দলের কর্মকাণ্ড বাস্তবায়ন করে যাচ্ছেন। আমরা উনার (রাষ্ট্রপতি) কাছ থেকে আশানুরূপ কিছু দেখতে পারছি না।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুস সালাম, যুগ্ম মহাসচিব মজিবর রহমান সরোয়ার, মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, এমরান সালেহ প্রিন্স, শামা ওবায়েদ, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক এ বি এম ওবায়দুল ইসলাম, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শরীফুল আলম, ওলামা দলের সভাপতি আবদুল মালেক, জাসাস সাধারণ সম্পাদক হেলাল খান, আবদুস সালাম আজাদ, ছাত্রদলের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ, দফতর সম্পাদক আবদুস সাত্তার পাটোয়ারি প্রমুখ।

০৮ জানুয়ারী, ২০১৮ ১৪:২৯ পি.এম