nagorikkantha

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মানসিক সমস্যা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিতর্ক চলছে। তবে সম্প্রতি প্রেসিডেন্টকে নিয়ে লেখা মার্কিন সাংবাদিক মাইকেল উলফের ফায়ার অ্যান্ড ফিউরি বই প্রকাশিত হওয়ার পর এ বিতর্ক আবারও বাড়তে থাকে। উলফ তার বইয়ে বলেছেন, ট্রাম্পের প্রকট মানসিক সমস্যা রয়েছে। তিনি ১০ মিনিটের মধ্যে একই কথা অন্তত তিনবার বলেন।

তবে শুক্রবার হোয়াইট হাউসের চিকিৎসক রনি জ্যাকসন বলেছেন, বর্তমানে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের স্বাস্থ্য অত্যন্ত ভালো রয়েছে। তবে মার্কিন এ প্রেসিডেন্টের মানসিক স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়েছে কিনা সেটি পরিষ্কার নয়।

হোয়াইট হাউসের এ চিকিসকের কাছে কয়েক ডজন চিকিৎসক ও স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা একটি চিঠি লিখেছেন। সেই চিঠিতে ট্রাম্পের মানসিক অবস্থা পরীক্ষার আহ্বান জানানো হয়েছে।

চিঠিতে তারা বলেছেন, প্রেসিডেন্টের মানসিক স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। কারণ প্রেসিডেন্টের স্বাস্থ্যের ওপর নির্ভর করে আমেরিকানদের জীবন-যাপন এবং জাতির নিরাপত্তা।

অতীতে পাঁচ প্রেসিডেন্টের স্বাস্থ্য পরীক্ষা প্রতিবেদনে মানসিক স্বাস্থ্যের ব্যাপারে সামান্য বিবরণ পাওয়া যায়। তবে মানসিক পরীক্ষা করা হয় কিনা তার কোনো উল্লেখ থাকে না। চিকিৎসকদের পাঠানো চিঠিতে বলা হয়েছে, ৬৬ বছর কিংবা তার চেয়ে বয়স্ক রোগীর শারীরিক পরীক্ষার সময় মানসিক মূল্যায়নও করা হয়। ট্রাম্পের বর্তমান বয়স ৭১ বছর।

ট্রাম্পের মানসিক সমস্যা নিয়ে যে প্রশ্ন উঠেছে তা নাকচ করে দিয়েছে হোয়াইট হাউস। এ অভিযোগকে লজ্জাজনক ও হাস্যকর বলে মন্তব্য করেছে হোয়াইট হাউস।

অতীতে ট্রাম্পের মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে প্রশ্ন উঠলেও গত সপ্তাহে মাইকেল উলফের ফায়ার অ্যান্ড ফিউরি প্রকাশিত হওয়ার পর এই বিতর্ক আবারও জোরালো হয়। সিএনএনের ক্রিশ্চিয়ান আমানপোরকে দেয়া এক স্বাক্ষাৎকারে মাইকেল উলফ বলেছেন, প্রেসিডেন্টের আশ-পাশের শতভাগ মানুষ বিশ্বাস করেন, তিনি হোয়াইট হাউসের দায়িত্ব পালনে সক্ষম নন।

হোয়াইট হাউস এবং ট্রাম্প মার্কিন সাংবাদিকের এ বইকে আবর্জনার সঙ্গে তুলনা করেছে। এমনকি বিক্রিতে কড়াকড়ি আরোপ করলেও বাজারে আসার পর পর তা শেষ হয়ে যায়। গত সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্রে বিক্রি হওয়া বইয়ের তালিকায় বেস্ট সেলার হয় ফায়ার অ্যান্ড ফিউরি।

১৪ জানুয়ারী, ২০১৮ ১৩:৪৬ পি.এম