nagorikkantha

প্রেস কনফারেন্সের শুরুতেই টেকনিক্যাল ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজন জানিয়ে দিলেন, ‘আমরা সিনিয়র ক্রিকেটারদের উপর অনেক কিছুই ছেড়ে দিয়েছি। তারা জানে কখন কি করতে হবে। দীর্ঘদিন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলে মাশরাফি, তামিম, সাকিব, মুশফিক, রিয়াদরা অনেক পরিণত ও অভিজ্ঞ। বিভিন্ন দলের বিপক্ষে তামিম নিয়মিত রান করছেন। সাকিব বিশ্বের সেরা অলরাউন্ডার ও কার্যকর ক্রিকেটার। ধারাবাহিকভাবে ভালো খেলা মুশফিক নির্ভরতার প্রতীক। মাহমুদউল্লাহ বিশ্বকাপ ও চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেঞ্চুরিয়ান। কাজেই তাদের মেধা, প্রজ্ঞা নিয়ে সংশয় থাকার প্রশ্নই ওঠে না, তারাই দলের নিউক্লিয়াস। তাদের উপর অযথা চাপ প্রয়োগ করা প্রশ্নই ওঠে না। তারা কর্তব্য ও দায়িত্ববোধ সম্পর্কে পুরোপুরি সচেতন, তাই আমরা তাদের সর্বোচ্চ স্বাধীনতা দিয়েছি।’

সুজনের বায়ে বসা অধিনায়ক মাশরাফি কথা বলতে শুরু করে একই সুরেই যেন গাইলেন, ‘আমাদের ড্রেসিংরুম এখন অনেক বেশি নির্ভার।’

সুজন ও মাশরাফির এই কথোপকথন বলে দেয় হাথুরুসিংহের সময় ড্রেসিংরুমে ক্ষানিক উদ্বেগ, উৎকণ্ঠা ও বাড়তি চাপ বিরাজ করতো, যা কেটে গেছে। তার মানে, মাঝে কিছু দিন পরাধীনতার শিকলে ছিলেন বাধা। এবার যেন মুক্ত বিহঙ্গ টাইগাররা। দেখা যাক এই মুক্ত বিহঙ্গরা সাফল্যের আকাশে উঠতে পারেন কি না।

১৪ জানুয়ারী, ২০১৮ ১৩:৫৫ পি.এম