nagorikkantha

দূর থেকে দেখলে মনে হতে পারে এই হাঁস পানিতে ভেসে বেড়ানো আর দশটা রাজহাঁসের মতো। কিন্তু কাছে গেলেই বোঝা যায় এটি প্রাণহীন। প্রাণ না থাকা সত্ত্বেও আর দশটা রাজহাঁসের মতো পানিতে ঘুরে বেড়াছে এই রোবট রাজহাঁস। এ দৃশ্য সিঙ্গাপুরের প্রধান হৃদের। খবর বিবিসি।

সিঙ্গাপুরের প্রধান জালাধারে পানির মান পরীক্ষার জন্য সম্প্রতি কয়েকটি রোবট রাজহাঁস ছেড়ে দেয়া হয়েছে। তাদের কাজ সিঙ্গাপুর শহরে পানি সরবরাহের প্রধান হ্রদে ভেসে বেড়ানো এবং পানির মানের দিকে নজর রাখা।

এই রোবট হাঁসগুলো নির্মাণ করা হয়েছে এমনভাবে যেন হ্রদের অন্যান্য রাজহাঁসের মধ্যে এগুলো মিশে যেতে পারে। হাঁসের ঝাঁকের সাথে মিশে এই রোবটগুলো ঘুরে বেড়াবে। কিন্তু রোবটের তালায় থাকবে প্রপেলার এবং পানি পরীক্ষার যন্ত্র।

পানি পরীক্ষার পর ওয়্যারলেস প্রযুক্তির মাধ্যমে তৎক্ষণাৎ পরীক্ষার ফলাফল পৌঁছে দেয়া হবে কর্তৃপক্ষের কাছে। এই সোয়ানবটগুলো তৈরি করেছেন যে বিজ্ঞানীরা তাদের একজন সিঙ্গাপুর ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক ম্যানডার চিট্রে।

তিনি বলেন, প্রথমে তারা ছোট পাখির মডেল বেছে নিয়েছিলেন। কিন্তু আকৃতিতে বড় বলে তারা রাজহাঁসের রোবট বানানোর সিদ্ধান্ত নেন। এই রোবটগুলো এমনভাবে বানানো হয়েছে যাতে ছোট নৌকা, ডিঙ্গি বা কায়াকের আঘাত লাগলেও এদের কোনো ক্ষতি হবে না। কিন্তু এর সবচেয়ে বড় সুবিধা পানি পরীক্ষার জন্য এখন থেকে বিজ্ঞানীদের আর হ্রদে যেতে হবে না।