nagorikkantha

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে প্রেম ও শারীরিক সম্পর্কের যে গুজব উঠেছে তা উড়িয়ে দিয়েছেন জাতিসংঘে নিযুক্ত দেশটির রাষ্ট্রদূত নিকি হেইলি। ট্রাম্প প্রশাসনের অন্যতম উজ্জ্বল নক্ষত্র মনে করা হয় মার্কিন এই প্রভাবশালী নারীকে।

সম্প্রতি মাইকেল উলফের লেখা ‘ফায়ার অ্যান্ড ফিউরি’ বইয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্টের সঙ্গে নিকি হেইলির প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে বলে জানানো হয়েছে। বইয়ে প্রকাশিত এই গুজব ছড়িয়ে পড়ার নিকি হেইলি মুখ খুলতে বাধ্য হয়েছেন। প্রেসিডেন্টের সঙ্গে প্রেমের গুজবের ব্যাপারে তিনি বলেছেন, এটা অত্যন্ত বিরক্তিকর।

হেইলির সঙ্গে ট্রাম্পের সম্পর্কের ব্যাপারে এইচবিও প্রোগ্রামের বিল মাহেরকে বলেন, ট্রাম্পের ব্যাপারে তার কাছে চাঞ্চল্যকর তথ্য ছিল; যা তিনি বইয়ে অন্তর্ভূক্ত করেছেন। তবে চূড়ান্ত প্রমাণ না থাকায় তিনি বই থেকে বাদ দিয়েছেন।

তবে তিনি অত্যন্ত সতর্কতার সঙ্গে বইটির শেষ লাইন পর্যন্ত পাঠককে পড়ার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, এরপরই আপনি চমকপ্রদ বিষয়টি জানতে পারবেন।

এরপরই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটার দুনিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায় যে এয়ার ফোর্স ওয়ানের বিমানে মার্কিন প্রেসিডেন্টের সঙ্গে একান্তে সময় কাটিয়েছেন নিকি হেইলি। টুইটের শেষ জুড়ে দেয়া হয়, রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে ট্রাম্পের।

এদিকে, গুজবের জবাবে হেইলি বলেছেন, ‘চরম বিব্রতকর’, ‘বিরক্তিকর’ এবং ‘আসলেই এটি ঠিক নয়’। তিনি বিমানে প্রেসিডেন্টের সঙ্গে শুধুমাত্র তখনই ছিলেন; যখন সেখানে আরো অনেকেই উপস্থিত ছিল। আমি কখনোই সেখানে একা ছিলাম না।

মার্কিন এ রাষ্ট্রদূত বলেছেন, অধিকাংশ পুরুষই নারীদের সম্মান করেন। তবে অল্প কিছু পুরুষ আছেন যারা নারীকে সম্মান দিতে জানেন না; তারাই নারীকে নিয়ে এমন গুজব ছড়ায়।

নিকি হেইলি ভারতীয় বংশোদ্ভূত মার্কিন রাজনীতিক। ২০১০ সালে সাউথ ক্যারোলাইনার গভর্নর নির্বাচিত হন তিনি। গত বছর হোয়াইট হাউসের দায়িত্ব নেয়ার পর সাউথ ক্যারোলাইনার সাবেক গভর্নর নিকি হেইলিকে জাতিসংঘে মার্কিন রাষ্ট্রদূত হিসেবে নিয়োগ দেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।