nagorikkantha

শ্রীলঙ্কাকে ব্যাটিংয়ের মাঝপথে বেশ চেপে ধরেছিল বাংলাদেশ। মাঠের খেলায় অধিনায়ক মাশরাফির চেয়েও যেন খুব বেশি অ্যাক্টিভ ছিলেন সাকিব আল হাসান। ফিল্ডিং সাজানোর দায়িত্ব যেন পুরোটাই পালন করছিলেন সাকিব। মাশরাফি এ ক্ষেত্রে দর্শক। শ্রীলঙ্কাও ছিল বেশ চাপে। সিঙ্গেলসও বের করতে পারছিল না এমন সাঁড়াশি ফিল্ডিংয়ের কারণে।

কিন্তু বিপত্তিটা বেধে গেলো এরই মধ্যে। খেলার ৪২তম ওভারের সময় বল করছিলেন মোস্তাফিজুর রহমান। প্রথম বলেই দিনেশ চান্দিমাল এক্সট্রা কভারে ঠেলে দিয়ে এক রান নিতে গেলেন। দৌড়ে এসে ফিল্ডিং করার চেষ্টা করলেন সাকিব। বল ধরতে পারলেন না। কিন্তু পড়ে গিয়ে বাম হাতের আঙ্গুলেই দারুণ ব্যথা পেয়ে গেলেন।

ফিল্ডিং করতে গিয়ে সাকিব যে পড়লেন, পড়েই থাকলেন। উঠছেন না দেখে এগিয়ে এলেন মোস্তাফিজ। অবস্থা দেখে ড্রেসিং রুমে ফিজিওর সাহায্য চাইলেন। এগিয়ে এলেন মাশরাফিসহ অন্যসব খেলোয়াড়। বেশ কিছুক্ষণ পর সাকিব ওঠে দাঁড়ালেও ফিজিওর সঙ্গে করে চলে গেলেন মাঠের বাইরে।

মাঠের বাইরে চলে গেলেও সাকিব আল হাসান আবার মাঠে নামবেন, এটাই ছিল সবার প্রত্যাশা। তা না হোক, অন্তত ব্যাটিং তো করতে পারবেন; কিন্তু টিম ম্যানেজমেন্ট সূত্রে জানা গেছে, সাকিব আল হাসানকে হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। আঙ্গুলে চিড় ধরা পড়েছে হয়তো তার। এ কারণে ডাক্তারের শরণাপন্ন হলেন। সুতরাং, শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তার ব্যাট করার সম্ভাবনা অনেক কমে গেলো। সম্ভাবনা নাই বললেই চলে।

বল হাতে আজ সাকিব ছিলেন উইকেটশূন্য। যদি আহত না হতেন, তাহলে তিনি আরও কয়েকটি ওভার করতে পারতেন কিংবা উইকেটও পেতেন। ব্যাট হাতেও তিনি বাংলাদেশের বড় শক্তি। কিন্তু সাকিব ইনজুরিতে পড়ায় বাংলাদেশের জন্য জয় পাওয়াটা হয়তো কঠিনই হয়ে যাবে।