nagorikkantha

চলতি বছরের জানুয়ারিতেই যুদ্ধের বলি হতে হয়েছে ৮৩ শিশুকে। মধ্যপ্রাচ্য এবং উত্তর আফ্রিকায় সংঘাতপূর্ণ এলাকায় গত মাসে বহু শিশুর মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘের শিশু বিষয়ক সংস্থা ইউনিসেফ। খবর আল জাজিরা।

সোমবার ইউনিসেফের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, চলতি বছরের জানুয়ারিতে ইরাক, লিবিয়া, ফিলিস্তিন, সিরিয়া এবং ইয়েমেনে সংঘাতে বহু শিশু প্রাণ হারিয়েছে।

এসব এলাকায় আত্মঘাতী হামলায় অনেক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। অপরদিকে যুদ্ধ-সংঘাত থেকে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করতে গিয়েও বহু শিশু নিহত হয়েছে।

বিভিন্ন এলাকায় এত শিশুর মৃত্যু ঘটনা গ্রহণযোগ্য নয় বলে উল্লেখ করেছেন মধ্যপ্রাচ্য এবং উত্তর আফ্রিকায় ইউনিসেফের আঞ্চলিক পরিচালক গের্ট ক্যাপেলায়িরি। তিনি বলেছেন, সংঘাতে শিশু মৃত্যুর ঘটনা আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করেছে।

তিনি বলেন, ‘যুদ্ধ-সংঘাতের কারণে শিশুদেরই সবচেয়ে বেশি মূল্য দিতে হয়েছে। তারা এসবের জন্য কখনই দায়ী নয়। অকালেই তাদের জীবনাবশান ঘটছে। তাদের পরিবার চরম দুর্দশায় পতিত হয়েছে। আমরা সম্মিলিতভাবে শিশুদের ওপর যুদ্ধ-সংঘাত বন্ধ করতে ব্যর্থ হচ্ছি। শুধুমাত্র সিরিয়াতেই কমপক্ষে ৫৯ শিশু নিহত হয়েছে।’

লেবাননে চার শিশু নিহত হয়েছে। ২০১১ সাল থেকে শুরু হওয়া গৃহযুদ্ধের কারণে সিরিয়ায় কমপক্ষে ৪ লাখ মানুষ প্রাণ হারিয়েছে এবং বাস্তুহারা হয়েছে আরও ২ কোটির বেশি মানুষ।

ইউনিসেফ জানিয়েছে, চলতি বছরের শুরুতে অর্থাৎ জানুয়ারিতে ইয়েমেনে ১৬ শিশুর মৃত্যু হয়েছে। অপরদিকে, লিবিয়ার বেনগাজি শহরে আত্মঘাতী হামলায় তিন শিশু নিহত হয়েছে।

ফিলিস্তিনের রামাল্লাহ শহরের কাছে এক কিশোর গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা গেছে। অপরদিকে, ইরাকের মসুল শহরে বোমা হামলায় আরও এক শিশু নিহত হয়েছে।

মধ্যপ্রাচ্য এবং উত্তর আফ্রিকায় যুদ্ধ-সংঘাতের কারণে শিশুদের শৈশব হারিয়ে যাচ্ছে। সেখানে বহু শিশু অকালেই প্রাণ হারাচ্ছে, আহত এবং গ্রেফতারও হচ্ছে। তারা খাদ্য এবং চিকিৎসার মতো বিভিন্ন মৌলিক অধিকারগুলো থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।