nagorikkanthanagorikkantha

মিথ্যা সংবাদ, অনৈতিকতা ও অশ্লীল বাক্য বা যেকোনো উপাদান প্রচারের মাধ্যমে অর্থ উপার্জনের রাস্তা আরও কঠিন করছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক। যেসব ভিডিও ও উপাদান নগ্ন, হিংস্র, মিথ্যা তথ্য ও অশ্লীলতাসমৃদ্ধ হবে, সেগুলো থেকে বিজ্ঞাপন সরিয়ে নিতে গত বুধবার প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হয়েছে এই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম। এমনকি যারা প্রতিনিয়ত মিথ্যা সংবাদ প্রচার করে, তারা সম্ভবত এই প্ল্যাটফর্মে অর্থ উপার্জনের অনুমতি পাবে না।

নতুন নিয়মটি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানকে আশ্বস্ত করতে সক্ষম হবে, যাতে তাদের বিজ্ঞাপনগুলো আপত্তিকর কোনো উপাদানের পাশে না দেখা যায়। তবে এর জন্য ফেসবুককে সিদ্ধান্ত নিতে হবে নির্দিষ্ট কিছু পেজ ও ভিডিও অপরাধমূলক কিনা। পদক্ষেপটি যদি ফেসবুক বাস্তবায়ন করতে পারে, তাহলে ডিজিটাল বিজ্ঞাপনের ক্ষেত্রে প্রতিদ্বন্দ্বীদের কারণে যেসব সমস্যা তৈরি হচ্ছিল, তা অনেকটাই দূর করা সম্ভব হবে। বিজ্ঞাপনজনিত সমস্যার কারণে এ বছরের শুরুর দিকে গুগলকে বেশ চাপের মুখেই পড়তে হয়েছিল। কারণ বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ ব্র্যান্ড যখন জানতে পারে তাদের বিজ্ঞাপন ইউটিউবে চরমপন্থীদের তৈরি করা ভিডিওর পাশে দেখাচ্ছে, তখন সেসব ব্র্যান্ড অস্থায়ীভাবে তাদের বিজ্ঞাপন ভিডিও শেয়ারিংয়ের এই মাধ্যম থেকে ফেরত নেয়।

গত বুধবার ফেসবুক যে নিয়ম প্রকাশ করেছে, তাতে কোন ধরনের উপাদানের পাশে বিজ্ঞাপন প্রচার করা হবে না সে সম্পর্কে বিস্তারিত বলা আছে। সেখানে বলা আছে, যেসব উপাদান মানুষ বা প্রাণীকে মারধর করা, সংঘর্ষ, জমাট বাঁধা রক্ত, আগ্রাসন, উত্তেজনাপূর্ণ কোনো ঘটনা, মারাত্মক আঘাত বা ক্ষত, বিকৃত শরীর বা মৃতদেহ, অপারেশনের দৃশ্যসমৃদ্ধ হয়, ওই সব উপাদান বা পোস্টে বিজ্ঞাপন প্রচার করা হবে না। এমনকি সেখান থেকে কোনো অর্থ উপার্জন করা যাবে না।

এমন অনেক ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান রয়েছে, যারা মানুষের দৃষ্টি আকর্ষণ করার জন্য অতিরঞ্জিত শিরোনামের আলোকে কিছু প্রকাশ করে, যাকে ফেসবুক মিথ্যা সংবাদ হিসেবে উল্লেখ করেছে। এ ধরনের কাজের মাধ্যমে যারা ব্যবসা চালাচ্ছিল, তাদের বিরুদ্ধে এখন ফেসবুক ব্যবস্থা নেবে। তবে সম্পূর্ণভাবে যে এ সমস্যা সমাধান করা যাবে এমনটা নয়। কারণ এমন অনেকেই আছে, যারা অর্থ উপার্জনের জন্য ফেসবুক বিজ্ঞাপন মাধ্যম ব্যবহার করে না, শুধু তাদের ওয়েবসাইট পরিচালনার জন্যই করে থাকে।

২০১৬ সালে মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের সময় অনেক মিথ্যা সংবাদ প্রচারের অভিযোগ রয়েছে ফেসবুকের বিরুদ্ধে। ঠিক তখন থেকেই বিজ্ঞাপন ও মিথ্যা সংবাদের বিষয়ে বেশ কঠোর অবস্থান বজায় রেখেছে ফেসবুক।

মারিফুল হাসান

সূত্র: সিএনএন

১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১৬:২৭ পি.এম