nagorikkanthanagorikkantha

 

পাঁচ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথমটিতে জয়। বৃষ্টিতে ভেস্তে না গেলে দ্বিতীয় ম্যাচেও হয়যেতা জয় পেত বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল। এমন দাপুটে শুরুর পর বাংলাদেশ যেন পথ হারিয়ে ফেলল। তৃতীয় ম্যাচে বাংলাদেশকে উড়িয়ে দেয়ার পর চতুর্থ ম্যাচেও বড় জয় পেল আফগানিস্তান। বুধবার লো স্কোরিং ম্যাচে বাংলাদেশকে ৪৫ রানের 'বড় ব্যবধানে' পরাজিত করেছে আফগান যুবারা।

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচে আগে ব্যাটিংয়ে নেমে বাংলাদেশের বোলারদের তোপের মুখে পড়ে মাত্র ১৩৩ রানে গুটিয়ে যায় আফগানিস্তান অনূর্ধ্ব-১৯ দল। সহজ লক্ষ্যকে পাহাড় বানিয়ে ফেলা বাংলাদেশ ৩০.৩ ওভারে মাত্র ৮৮ রানে গুটিয়ে যায়। বাংলাদেশকে একাই ধসিয়ে দেন আফগান বোলার মুজিব জাদরান।

অবশ্য বাংলাদেশের অবস্থা আরো ভয়াবহ নাজুক হতে পারতো। আফগানিস্তানের বোলারদের তোপের মুখে পড়ে মাত্র ১১ রান তুলতেই ৬ উইকেট হারিয়ে বসে স্বাগতিকরা। একে একে ফিরে যান মোহাম্মদ সজীব হোসেন (৬), পিনাক ঘোষ (১), সাইফ হাসান (০), তৌহিদ হৃদয় (০), আফিস হোসেন (০) ও মোহাম্মদ রাকিব (১)।

চরম ব্যাটিং বিপর্যয়ের মুখে মাহিদুল ইসলাম অঙ্কন এবং নাঈম হাসানের মধ্যকার ৭৫ রানের দারুণ জুটিতে ম্যাচে ফেরার দারুণ চেষ্টা করে বাংলাদেশ। তবে ফের আফগান বোলারদের তোপের মুখে পড়ে ২ রানের ব্যবধানে শেষ ৪ উইকেট হারিয়ে 'লজ্জাজনক' হার নিয়ে মাঠ ছাড়ে টাইগার যুবারা।

টপ ও মিডলঅর্ডার ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতার পর বাংলাদেশের হয়ে অঙ্কন ৪৩ এবং নাঈম ৩০ রানের ইনিংস খেলেন। শেষের তিন ব্যাটসম্যান কাজী অনিক, হাসান মাহমুদ ও ইয়াসিন আরাফান কোনো রানই করতে পারেননি।

আফগানিস্তানের হয়ে একাই বাংলাদেশকে ধসিয়ে দেন মুজিব। ১৯ রানের বিনিময়ে ৭ উইকেট নেন তিনি। এছাড়া কায়েস আহমেদ দুটি ও নাভিন-উল-হক একটি উইকেট নেন।

এর আগে নাঈম হাসান ও হাসান মাহমুদের বোলিং তোপে পড়ে শুরুটা ভালো হয়নি আফগানিস্তানেরও। তবে দারবিশ রাসূলি এবং নিসার ওয়াহদাতের দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে স্বস্তি ফেরে আফগান শিবিরে।

আফগানিস্তানের হয়ে রাসুলি ২৩ এবং নিসার করেন ৫৩ রান। নয় নম্বরে নামা নাভিন-উল-হক ৬৬ বলে ১৬ রানের সংগ্রামী ইনিংস খেলেন।

বাংলাদেশের হয়ে নাঈম সর্বোচ্চ পাঁচটি উইকেট নেন। এছাড়া সাইফ হাসান তিনটি ও হাসান মাহমুদ নেন দুটি উইকেট।

০৪ অক্টোবর, ২০১৭ ১৭:৫৭ পি.এম