nagorikkanthanagorikkantha

দুশ্চিন্তা করতে কে চায় বলুন, কিন্তু দুশ্চিন্তা এমন একটি সমস্যা যা না চাইলেও করে থাকেন অনেকেই। তবে কোনো একটি সমস্যায় পড়ে দুশ্চিন্তা করলেই তো আর সমাধান পাওয়া যায় না বরং সমাধানের পথ খুঁজতে হয় মাথা ঠাণ্ডা রেখে। কিন্তু অনেকেই সমস্যায় পড়লে মাথা ঠাণ্ডা রাখতে পারেন না বরং অতিরিক্ত দুশ্চিন্তা করে সব তালগোল পাকিয়ে ফেলেন। তাই যদি অতিরিক্ত দুশ্চিন্তা করা কমিয়ে ফেলতে চান তাহলে এই ছোট্ট কাজগুলো করে নিন।

১) দেয়ালের ওপর পা তুলে দিন
শুনতে একটু আশ্চর্যজনক মনে হলেও এটি খুবই ভালো পদ্ধতি দুশ্চিন্তা কমানোর জন্য। মেঝেতে শুয়ে কোমর থেকে দেহের নিচের অংশ দেয়ালের সাথে সমান্তরালে লাগিয়ে রাখুন কিছুক্ষণ। এরপর এভাবেই থেকে শান্ত ভাবে শ্বাস প্রশ্বাস নিতে থাকুন। কিছুক্ষণের মধ্যেই মস্তিষ্ক রিলাক্স হবে এবং দুশ্চিন্তা দূরে পালাবে। এরপর শান্ত ভাবে সমাধানের পথ খুঁজুন।

২) ম্যাগনেসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার খান
ম্যাগনেসিয়াম আমাদের সেন্ট্রাল নার্ভাস সিস্টেম এবং স্ট্রেস হরমোন নিয়ন্ত্রণ করতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। দেহে ম্যাগনেসিয়ামের অভাব হলে ঘুম কম হওয়া, দেহে আড়ষ্টতা বোধ হওয়া এবং অযথাই দুশ্চিন্তা করার মতো সমস্যা দেখা দেয়। তাই ম্যাগনেসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার খেয়ে দুশ্চিন্তা করার অভ্যাস দূরে রাখুন।

৩) সুঘ্রাণ নিন
কিছু কিছু এসেনশিয়াল অয়েলের সুঘ্রাণ মস্তিষ্ক রিলাক্স করতে বিশেষ ভাবে কাজ করে থাকে। এটি আমাদের মুড এবং ইমোশনের ওপর অনেক ভালো প্রভাব ফেলে থাকে। কমলা লেবু, মলটা, মিন্ট ইত্যাদি ধরণের সুঘ্রাণ মস্তিষ্ক রিলাক্স করে দুশ্চিন্তা দূর করতে পারে। এছাড়াও নারকেল তেল বা জবা ফুলের তেল মাথায় ম্যাসাজ করলেও অনেক উপকার পাওয়া যায়।

৪) খাদ্য তালিকায় রাখুন মাছের তেল
গবেষণায় দেখা যায় মাছের তেল এবং বি ভিটামিন আমাদের আংজাইটি সমস্যার সমাধান করতে বিশেষভাবে কার্যকরী। মাছের তেলের ওমেগা৩ ফ্যাটি অ্যাসিড, ইপিএ, ডিএইচএ এবং ব ভিটামিন আমাদের মুড সঠিক রাখে হরমোনের ভারসাম্য বজায় রাখার মাধ্যমে এবং দুশ্চিন্তা দূর করতে সহায়তা করে।

৫) ব্যায়াম করুন
ব্যায়াম কররা বা শারীরিক পরিশ্রম মস্তিষ্কে ভালোলাগার হরমোন এন্ডোরফিন উৎপাদনে বেশ সহায়ক। তাই যখনই দুশ্চিন্তার ছোঁয়া লাগবে মনে তখন যদি ব্যায়ামের সময় নাও থাকে একটু বাইরে হাঁটতে বা জগিং করতে চলে যান। দেখবেন কিছু সময় পরই দুশ্চিন্তা ভুলে যেতে থাকবেন।

১১ অক্টোবর, ২০১৭ ১৭:১৬ পি.এম